written by | October 11, 2021

মিষ্টান্ন ব্যবসা

মিষ্টান্ন ব্যবসা কিভাবে শুরু করতে হয়?

যে কোনো উৎসব অনুষ্ঠান মিষ্টান্ন ছাড়া সম্পূর্ণ হয়নাসেটি কোনো শিশুর জন্মই হোক বা বিবাহই হোক আর কারুর মৃত্যুবার্ষিকী হোক মিষ্টির ব্যবহার সেখানে থাকবেইযে কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বা ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুধুমাত্র মিষ্টির উপর নির্ভর করেই পালন করা যায়, তাই মিষ্টির অবদান আমরা ভুলতে পারিনাআমরা যখনই কারুর বাড়ি যাই তাদের মিষ্টিমুখ করানোর জন্যে সবার আগে আমাদের মিষ্টির কথা মনে হয় মুখরোচক খাবারের পাশাপাশি  দুগ্ধজাত প্রোডাক্ট দুধ ,দই, পনীর, এবং বিভিন্ন মিষ্টির স্বাদ আমরা ভুলি কি করে ? যে কোনো শুভ কাজ সবসময় মিষ্টি দিয়েই শেষ হয়  রোজকার খাবারেও একটু আধটু সন্দেশ, মিষ্টি পেলে আমরা খুশিই হই আর আমাদের বারো মাসে তেরো পার্বন তাই সন্দেশ বা মিষ্টির চাহিদা সারাবছরই থাকে এই দেশে মিষ্টি খেতে পছন্দ করে না এরকম মানুষ কমই আছে  এতো রকম প্রাচুর্যতা কোনটা রসালো , কোনটা একটু শুকনো ক্ষীর ক্ষীর জাতীয় , আবার কোনোটা ছানা দিয়ে তৈরী তাই যারা একটি প্রকারের মিষ্টি পছন্দ করে না, অন্য স্বাদের অপসন থেকে তাদের পছন্দ খুজতেও কোনো সমস্যা হয় না যদি তুমি একটা স্টার্টআপ হিসাবে মিষ্টির দোকান করবে ভাবছো খুব বেশি বিনিয়োগ না করে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর জন্যে একটি খুব ভালো সিদ্ধান্ত হতে চলেছে  

কিভাবে শুরু করবে

দোকানের অবস্থান এবং নামকরণ করা 

দোকান করার জন্যে প্রথমে তোমাকে একটি জায়গা ঠিক করতে হবে জনবসতিপূর্ণ একটি জায়গা পছন্দ করে দোকানের একটি সুন্দর নাম দাও অনেক মানুষ কে দোকানে নিয়ে আসার জন্যে সঠিক জায়গায় একটি দোকানের অবস্থান অনেকাংশে সাহায্য করে আর দোকানের নাম ছাড়া কোনো দোকানকেই মানুষ সহজে চিনতে পারবে না তাই প্রথম থেকেই এই দুটি ব্যাপারে মনোযোগ দাও  প্রথমে যদি একটি দোকান ঘর কিনতে না পারো, ভাড়া নেওয়ার কথা ভাবতে পারো  দোকানের লাভ হতে শুরু করলে তারপর সেটিকে ফিক্সড করার ব্যবস্থা করলে তোমার সুবিধাই হবে

নিজস্য না পাইকারি বাজার 

সাধারণত দুইভাবে মিষ্টির দোকান চালনা করা হয় পাইকারি দোকান বা স্টোর থেকে মিষ্টি কিনে সেটি খুচরো বিক্রি করা এবং নিজস্স কারখানায় মিষ্টি উৎপাদন করে বিক্রি করা নিজস্স কারখানায় মিষ্টি উৎপাদন করার জন্যে একটি জায়গা লাগে কিন্তু কোন মিষ্টি ফ্রেশ, কোন মিষ্টির স্বাদ কেমন সেই ব্যাপারে বিশ্বাসী থাকা যায়  পাইকারি দরে মিষ্টি কেনার জন্যে যার সাথে তুমি কাজ করবে সেই ব্যাক্তির ওপর তোমাকে ভরসা করতে হবে, তাঁর প্রদত্ত দামের সাথে তোমার দামের সামঞ্জস্য রেখে তোমাকে মিষ্টি বিক্রি করতে হবে, বাইরে থেকে সবসময় নিয়ে আসার সমস্যা হতে পারে ,বিক্রি না হলে তুমি সেগুলোকে হয়তো ফেরত দিতেও পারবে নাআর মিষ্টির মান সঠিক না হলে কোনো ক্রেতা আসবে না, তুমি খুব তাড়াতাড়ি ক্ষতির মুখে পড়বেতাই মিষ্টির স্বাদ এবং লাভ ঠিক রাখার জন্যে অনেকেই নিজস্য কারিগর দিয়ে মিষ্টি তৈরী করান তবে তোমার যে পদ্ধতিটি সুবিধা মনে হবে তুমি সেটি করবে  

কাঁচামাল এবং স্থায়ী উপকরণ– 

মিষ্টি উৎপাদন করতে খুব বেশি পুঁজির দরকার না পড়লেও কিছু কাঁচামাল কিনতে হয়  তার মধ্যে খাঁটি দুধ আসল হলেও ময়দা ,চিনি, ঘি এগুলোও প্রয়োজন  আর মিষ্টি তৈরী করার জন্যে কড়াই, বড়ো বড়ো কিছু প্লেট, দোকানে সাজানোর জন্যে কিছু ট্রে এগুলো প্রয়োজন সব ধরণের মিষ্টি তৈরির পদ্ধতি একরকম হয় না তাই মিষ্টি বানানোর নিয়ম প্রক্রিয়া সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবেদরকার হলে অভিজ্ঞ কারিগরের সাহায্য নিতে পারো  কিন্তু প্রথম থেকে মিষ্টির গুণগত মান এবং দেখতেও নতুনত্ব হতে হবে  স্বাদ ভালো হলেও দেখতে ভালো না লাগলে মিষ্টি অনেকসময় কেউ নিতে চান না  

মিষ্টির রকমফের

 এরপর বলি কোন কোন মিষ্টি বানাতে পারো প্রথমে তুমি কয়েকটা দোকানে ঘুরতে পারো কোন ধরণের মিষ্টির চাহিদা বেশিসেই বুঝে শুরু করতে পারোতবে একটি দোকানে সবসময় কম মিষ্টি এবং বেশি মিষ্টির সন্দেশ রাখা উচিত শুকনো মিষ্টি থেকে রসালো মিষ্টির একটা ভালো কালেকশন রাখলে ভালো হবে তবে তোমাকে খেয়াল রাখতে হবে তোমার দোকানের মিষ্টি যেন অন্যদের চেয়ে একটু আলাদা স্বাদের হয় সবসময় ফ্রেশ থাকে এবং নকশার মধ্যেও ভিন্নতা থাকেমিষ্টির দামও যেন সকলের নাগালের মধ্যে হয়উৎসবের দিনে বাঙালির ঘরে মিষ্টির কদর অন্যান্য দিনের চেয়ে একটু বেশিই থাকেতাই সেই দিন গুলিতে কালেকশন একটু বেশি থাকলে বিক্রিও বাড়বেকোল্ডড্রিঙ্কস , দই , পনীর এর কালেকশন রাখতে পারোতার থেকেও লাভ হবে।  মধুমেহ বা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের  যেহেতু মিষ্টি খাওয়ার নিষেধাজ্ঞা থাকে তাদের জন্যে স্পেশ্যাল ভাবে কিছু মিষ্টি তৈরী করলেও ভালো হবে

প্যাকিং পদ্ধতি

যে কোনো জিনিসেরই প্যাকিং করার একটা উন্নতমানের ব্যবস্থা থাকলে ভালো হয়কারণ দাম দিয়ে বা সাধ করে একটা জিনিস কিনে কোনো মানুষের বাড়ি নিয়ে গিয়ে যদি দেখা যে সেটি নষ্ট হয়ে গেছে তাহলে যেমন দোকানের ওপর মনোক্ষুন্ন হয় তেমনি সে হয়তো পরের বার ওই দোকানে আর যাবে না।  তাই মিষ্টির প্যাকিং বেশ উন্নতমানের করতে হবেমিষ্টির পরিমানের ওপর নির্ভর করে বিভিন্ন সাইজের প্যাকেট দোকানে মজুত রাখতে হবেশুকনো মিষ্টি নিয়ে কোনো সমস্যা হয় না কিন্তু রসালো মিষ্টি নিয়ে যাওয়ার জন্যে কোনো এয়ারটাইট বা ওয়াটারপ্রুভ কন্টেইনার রাখতে পারোঅনেক দোকানেই এখন সেই ব্যবস্থা করছে মানুষ তাতে খুশিও হচ্ছেবিভিন্ন উৎসব আয়োজনের দিনে বাহারি মিষ্টির প্যাকেট ব্যবহার করতে পারোক্রেতাদের আকর্ষণ করার জন্যে মাটির ভাঁড় বা হাঁড়ি এখন বেশ ট্রেন্ড

প্রশিক্ষণ পুঁজি 

তুমি তোমার দোকান প্রতিষ্ঠা করছো , তাই সব ইনিশিয়েটিভ তোমাকেই নিতে হবে।  তোমাকে এই ব্যাপারটায় সতর্ক থাকতে হবে মিষ্টির ম্যান যেন যথার্থ হয়যেহেতু তোমার দোকান নতুন তাই কাস্টমারদের বিশ্বাস তোমাকে অর্জন করতে হবে।  এর জন্যে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।  একাউন্ট থেকে শুরু করে সংরক্ষণ পদ্ধতি সব দিকেই তোমাকে দক্ষ এবং প্রশিক্ষিত হতে হবেযদি  তুমি ইতিমধ্যেই এসব ব্যাপারে জানো তবে তো ভালোই নাহলে সরকারি বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো ছোট কোর্স করে নিতে পারোএর ফলে যেমন নিয়ম প্রক্রিয়া সম্পর্কে তুমি ওয়াকিবহাল হবে তেমনই তোমাকে কারুর উপর নির্ভর করতে হবে নাদোকানে একজন কর্মচারী এবং কারখানায় থেকে জন কর্মচারী রেখে সাধারণত কাজ শুরু করা যায়, পরবর্তীকালে দরকারে আরো লোক নিযুক্ত করতে পারবে। 

খুব বেশি পুঁজি প্রয়োজন না হলেও কয়েকলাখ টাকার মধ্যে দোকানঘর, দরকারি ব্যাবসায়িক কাগজপত্র এবং কাঁচামাল প্রস্তুত হয়ে যায়আর প্রারম্ভিক মূলধন জোগাড়ের সমস্যা হলে বিভিন্ন ব্যাঙ্ক, সরকারি বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়ে শুরু করতে তোমার নতুন যাত্রা শুরু করতে পারো

সাবধানতা মুনাফার পরিমান 

সব ব্যাবসার মতো মিষ্টির ব্যবসাতেও কিছু সাবধানতা অবলম্বন করতে হয়উপযুক্ত দামের মাধ্যমে মান নিয়ন্ত্রণ করা সব থেকে প্রধান বৈশিষ্টতার জন্যে কাঁচামাল ভালো থাকতে হবে, দোকানে যাতে মাছি বা কোনো পোকামাকড় না থাকে সেই দিকে লক্ষ রাখতে হবে , দোকানের পরিছন্নতার দিকে নজর দিতে হবেউৎপাদন সংরক্ষণে যথার্থ ব্যবস্থা নিতে হবে।  সাধারণত মিষ্টির দোকানে  ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ মুনাফা করা যায় ভালোভাবে বিক্রি করতে পারলেমাঝে মাঝে কিছু অফার দিতে পারো কাস্টমারের আকর্ষণ পাওয়ার জন্যেবিকালে সকালে কিছু মুখরোচক ভাজাভুজি খাবারের ব্যবস্থা করতে পারোআর সঠিক পদ্ধতিতে সব ব্যবসা থেকেই লাভ করা যায়।  তাই একটু বিজ্ঞাপন দেওয়ার ব্যবস্থা করে সবাইকে মিষ্টিমুখ করার চেষ্টায় লেগে পড়োতুমিও খুব তাড়াতাড়ি সাফল্যের মুখ দেখবে

Related Posts

None

হোয়াটসঅ্যাপ বিপণন


None

জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর


None

হাসান নিচ্ সাধারণ দোকানে জন্য কোড


None

মুদি দোকান


None

কিরানার দোকান


None

ফল এবং সবজি দোকান


None

বেকারি ব্যবসা


None

হস্তশিল্প ব্যবসা


None

অটোমোবাইল আনুষাঙ্গিক