written by | October 11, 2021

ড্রপশিপিংয়ের ব্যবসা

অনলাইন ড্রপশপিং ব্যাবসায় অর্থ উপার্জন করবেন কিভাবে?

বর্তমানে নূতন ব্যাবসায়ি উদ্যক্তারা অনেকেই অনলাইনে ব্যাবসা করে অর্থ উপারজনের কথা চিন্তা করে থাকেন। তবে অনলাইন হোক বা সাধারণ বাজার, ব্যাবসা শুরু করার আগে আপনার জানা দরকার যে কি ধরনের পন্য আপনি বিক্রয় করতে চান। তবে বর্তমানে উদ্যোক্তারা অনেকেই এই স্থানে এসে বিশেষ বাধার সম্মুখীন হন। যেহেতু এই উদ্যোক্তাদের অধিকাংশই বর্তমানে তরুন যুবক ও যুবতী তাই তারা তাদের নিজস্ব ব্যাবসা শুরু করার সময় প্রচুর অর্থবল নিয়ে তাদের কাজ শুরু করতে পারেন না। তাই তাদের পক্ষে নিজে কোন পন্য উৎপাদন করে বিক্রি করা বেশ কঠিন কাজ হয়ে ওঠে। অন্য ব্যাবসায়িদের থেকে পন্য ক্রয় করে তারপর বিক্রয় করাতে অপেক্ষাক্রিত কম অর্থ লাগে। তবে সেই অর্থও সামান্য নয়।

তাই যে সমস্ত নূতন উদ্যোক্তারা খুব ই কম মুল্ধন নিয়ে ব্যাবসা শুরু করতে ইচ্ছুক তারা একটি নূতন উপায় খুজে নিয়েছেন উপার্জন করার। তারা অন্য কোনও ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের পন্য অন্য কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রয় করেন। এতে তারা তৃতীয় পক্ষ হিসেবে দামের একটা অংশ পেয়ে থাকেন। এবং তার জন্য তাদের কনরকম পন্য মজুত ক্রতে বা উৎপাদন করতে হয় না। তারা খুব সামান্য ব্যায়ে যদি এক্তু ওয়েবসাইট প্রস্তুত করে ফেলেন যার সাহাজ্যে তিনি বিক্রেতা ও ক্রেতার যোগাযোগ স্থাপন করতে পারেন তবে আপনি খুব সহজেই এই ব্যাবসায় নিজস্ব স্থান করে নিতে পারবেন।

অনলাইন ড্রপশপিং সংক্রান্ত কিছু তথ্য

অনলাইন ড্রপশপিং এর ব্যাবসা শুরু করতে গেলে ড্রপশপিং সংক্রান্ত এই সমস্ত তথ্য আপনার জানা দরকার। এরপর এই তথ্যগুলি মেনে আপনি যদি আপনার ব্যাবসার কর্মকাণ্ড শুরু করেন তবে আপনি শীঘ্রই আপনার ব্যাসায় সাফল্য লাভ করতে পারবেন।

১)ওয়েবসাইট-

অনলাইন ড্রপশপিং এর ব্যাবসার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপকরন হল একটি ওয়েবসাইট। তাই আপনার এই ব্যাবসা শুরু করার সময়ে আপনার কাছে এতটুকু অর্থ থাকা প্রয়োজনীয় যার সাহাজ্যে আপনি আপনার নিজের একটি ওয়েবসাইট গড়ে তুলতে পারেন। কারন অনলাইন ড্রপশপিং এর সমস্ত কাজকর্মই হয় ব্যাবসায়ীর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

২)পরিচিতি-

অনলাইন ড্রপশিপিং এর ব্যাবসায় পরিচিতি একটি অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন বিষয়। আপনি যে সমস্ত ব্যাবসায়ীর পন্য আপনার ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দিতে চাইছেন, সেই বিক্রেতাদের সঙ্গে আপনার পরিচয় থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ন। এছাড়াও আপনার ওয়েবসাইটের সম্পর্কে সাধারণ জনগণের জানাটাও দরকার। তারা আপনার ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানলে তবেই আপনার ওয়েবসাইত থেকে বিভিন্ন পন্য ক্রয় করার কথা ভাববেন।

৩)ব্যাবসার পরিধি-

আপনি যখন অনলাইন ড্রপশিপিং এর ব্যাবসা শুরু করছেন, আপনাকে আগে ঠিক করতে হবে আপনি ঠিক কতটা কাজ করবেন। অনেক ব্যাবসায়ীর নিজস্ব কর্মচারি থাকে যারা ক্রেতাদের বাড়িতে গিয়ে পন্য সরবরাহ করে আসেন। আপনি যদি সেই সমস্ত ব্যাবসায়ীদের পন্য বিক্রয় করা শুরু করেন, তবে শুধুমাত্র ক্রেতার বেছে নেওয়া পন্যের কথা ব্যাবসায়ীকে জানিয়ে দিলেই আপনার আর কিছু করার প্রয়োজন থাকে না। তবে আপনি যদি এর পাসাপাসি এমন বিক্রেতা দের থেকেও পন্য নিতে থাকেন যাদের এই ব্যাবস্থা নেই, তাহলে আপনাকে এমন ব্যাবস্থা ও করতে হবে জাতে কোনও সমস্যা ছাড়াই পন্য বিক্রেতাদের থেকে ক্রেতাদের কাছে যেতে পারে।

অনলাইন ড্রপসিপিন-এর কিছু সুবিধা

বর্তমানে বহু তরুন উদ্যোক্তা তাদের ব্যাবসার মাধ্যম হিসেবে ড্রপশিপিংকে বেছে নিচ্ছেন। এর কারন হল অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসা শুরু করার সময় আপনি এমন অনেক সুবিধা পাবেন যা অন্য কোনও ব্যাবসায় পাবেন না। আসুন এই সমস্ত সুবিধা গুল সম্পর্কে এক্তু জেনে নেওয়া যাক।

১)প্রাথমিক খরচ সামান্য-

যেহেতু অনলাইন ওয়েবশিপিং ব্যাবসায় আপনা কাঁচামাল বা বিক্রয়ের পন্য অন্য কারুর কাছ থেকে ক্রয় করতে হয়না তাই অত্যন্ত কম প্রাথমিক খরচে আপনি এই ব্যাবসা শুরু করতে পারেন। সামান্য কিছু সাধারণ খরচার পাসাপাসি আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট প্রস্তুত করার মত যথেষ্ট অর্থ সংগ্রহ করতে পারেন তবে আপনি এই ব্যাবসায় অবতীর্ণ হতে পারেন।

২)সীমিত যায়গায় ব্যাবসার প্রতিষ্ঠা-

এই ব্যাবসায় আপনাকে সরাসরি কোনও পন্য সংক্রান্ত কাজকর্ম করতে হয়না। সেই জন্য আপনার পন্য উৎপাদন বা পন্য মজুত করার জন্য কোনও বিরাট জায়গার আয়জন করতে হয়না। তাই আপনি যদি ব্যাবসা শুরু করার আগে পৃথক কোনও ঘর বা বাড়ির ব্যাবস্থা করতে না পারেন, তবে আপনি আপনার বারিতে বসেই এই ব্যাবসা শুরু করতে পারেন।

৩)সামান্য সংখ্যক কর্মচারি-

যখন আপনি কোনও উৎপাদনমূলক বা পুনর্বিক্রয় মুলক ব্যাবসা শুরু করেন, তখন আপনাকে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই প্রচুর কর্মচারি নিয়গ করতে হয় এবং তাদের মাসিক পারিস্রমিকের ভার বহন করতে হয়। তবে অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসার ক্ষেত্রে এই বাদ্ধতা মুলকতা নেই। আপনি যদি শুধুমাত্র এমন কিছু কর্মচারি নিয়োগ করতে সক্ষম হন যারা সকল পন্য বিক্রেতাদের থেকে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেবে, তাহলেই আপনি এই ব্যাবসা শুরু করতে পারেন।

অনলাইন ড্রপশিপিং-এর কিছু অসুবিধা

অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসায় যেমন প্রচুর সুবিধা রয়েছে, তার পাসাপাসি রয়েছে অসংখ্য অসুবিধাও। এবং তার মুল কারন হল এই যে, এখানে যে সকল পক্ষ মিলে ব্যাবসায়িক কাজতি সম্পন্ন করে, তাদের একে অপরের সাথে দেখা হয়না কখনই। আর এই কারনে যে সমস্ত সমস্যা তৈরি হয়, তাদের কথাই এখানে বলা হল।

১)পন্য পরিবর্তন ও ফিরতের ব্যাবস্থা-

যখন কোনও পন্য ক্রয় করার সময়ে ক্রেতা দেই পন্যকে নিজের হাতে ধরে পরখ করে নিতে পারছেন না, তখন এমন ঘটনা ঘটতেই পারে যখন ক্রেতার পন্য পছন্দ হয়না অথবা এমন পন্য ক্রেতার কাছে পৌঁছে যায় যার কোনও প্রয়োজনই ক্রেতার নেই। এইরকম সময়ে ক্রতারা চান যে তাদের পন্য ফেরত নিয়ে তাকা ফেরত দেওা হোক, অথবা সেই পন্যের পরিবরতে ক্রেতার পছন্দমত অন্য কোনও পন্য দেওা হোক। আর অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসার সময়ে যেহেতু আপনি ক্রেতা ও বিক্রেতার যোগাযোগ ঘতাবেন টা আপনাকেই এই পরিসেবার ব্যাবস্থা করতে হবে। তবে এই পরিসেবার ব্যাবস্থা করতে গেলে বিক্রেতার আপনার উপর প্রচুর বিশ্বাস থাকা দরকার। আর প্রাথমিক স্তরে, একাধিক বিক্রেতার থেকে এই বিশ্বাস অরজন করাই একটি কঠিন কাজ হয়ে দারায়।

২)মজুত না থাকা পন্যের ব্যাবস্থা-

প্রাথমিক স্তরে আপনি যখন অনলাইন ড্রপশিপিং শুরু করবেন, তখন এমন অনেক সময় আসবে যখন আপনার কাছে ক্রেতারা এমন পন্য ছাইবে যা বক্রেতাদের কাছে সেই মুহূর্তে মজুত নেই। তখন আপনাকে হয় ক্রেতাদের অপেক্ষা করার জন্য বলতে হয়, অথবা একই রকম অন্য কোনও পন্য প্রেরনের প্রস্তাব দিতে হয়। তবে এই দুটি ক্ষেত্রেই ক্রেতারা রুষ্ট হতে পারেন। এবং তা যদি হয়, তবে একটি নতুন ব্যাবসা হিসেবে আপনাকে অনেক সমসসার সম্মুখীন হতে হবে।

এই ছিল অনলাইন ড্রপশিপিং সংক্রান্ত বিস্ত্রিত এক বিবরন। এখানে আমরা আপনাদেরকে এতা জানানর ছেস্তা করেছি যে অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসা শুরু করার জন্য আপনাকে কি কি পদক্ষেপ নিতে হবে। এ ছাড়াও আমরা বলেছি যে আপনি অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসা শুরু করার সময়ে এবং শুরু করার পড়ে কি কি সমসসার সম্মুখীন হতে পারেন। এর পাসাপাসি আমরা আপনাকে এও জানিয়েছি যে আপনি এই ব্যাবসা শুরু করলে কি এমন সুবিধা পাবেন যা অন্য ব্যাবসার ক্ষেত্রে আপনি পাবেন না। এই সমস্ত তথ্য জানার পর আপনার প্রথম কাজ হল এই সমস্ত তথ্য কে বিশ্লেষণ করা। এবং তারপর সেই বিশ্লেসিত তথ্যের ভিত্তিতে আপনার নিজস্ব ব্যাবসায়িক নীতি গড়ে তলা। এরপর আপনি যদি সেই নীতিকে সঠিকভাবে অবলম্বন করতে পারেন, তবে আপনি সহজেই অনলাইন ড্রপশিপিং ব্যাবসায় অনেক অর্থ উপারজন করতে পারবেন।

Related Posts

None

হোয়াটসঅ্যাপ বিপণন


None

জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর


None

হাসান নিচ্ সাধারণ দোকানে জন্য কোড


None

মুদি দোকান


None

কিরানার দোকান


None

ফল এবং সবজি দোকান


None

বেকারি ব্যবসা


None

হস্তশিল্প ব্যবসা


None

অটোমোবাইল আনুষাঙ্গিক