written by | October 11, 2021

জিএসটিআর 9 কীভাবে ফাইল করবেন

জিএসটিআর নাইন কি? কারা জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে পারে? জিএসটিআর নাইন ফাইল করার এক একটি পদক্ষেপ

যেকোনো দেশের নাগরিকেরা দেশকে ট্যাক্স বা কর দিতে বাধ্য থাকে। আর আমাদের দেশ ভারত এই নিয়মের ব্যাতিক্রম নয়। আর এই ট্যাক্সের পরিমান ব্যাক্তির বা প্রতিষ্ঠানের আয়ের পরিমান, সম্পত্তির পরিমান, ও অন্যান্ন আরও কিছু গুরুত্বপুর্ণ বিষয়ের উপর নির্ভর করে। তবে কোন ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানের জন্য এই নিয়ম খানিকটা আলাদা। তাদের আয়ের পরিমান যতই হোক না এক বিশেষ ধরনের কর বা ট্যাক্স হয় যা প্রদান করতে বাধ্য। ভারতে এই ধরনের ট্যাক্সকেই জিএসটি বলা হয়ে থাকে।

কোন ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানের মানেই হল তারা কোন এক ধরনের পন্য বা সেবা নির্দিস্ট মুল্যের পরিবর্তে প্রদান করে মুনাফা অর্জন করে থাকে।আর এই পন্য এবং সেবার উপর যে ধরনের কর প্রদান করা হয়ে থাকে তাকে গুডস এন্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স বা জিএসটি বলা হয়ে থাকে। আর এই জিএসটি যে সমস্ত মানুষ প্রদান করে থাকে তাদের একধরনের রিটার্ন ফর্ম পূরণ করতে হয় প্রতি বছরের শেষে। এই ধরনের রিটার্ন ফরমকে জিএসটিআর নাইন বলা হয়ে থাকে। এই প্রবন্ধে জিএসটিআর নাইন সংক্রান্ত কিছু তথ্য জানব যা আমাদের মনে থাকা জিএসটি সংক্রান্ত অনেক প্রস্ন দূর করে দেবে। তাই আসুন জেনে নেওয়া জাক এই তথ্যগুলি।

জিএসটিআর নাইন কি?

জিএসটিআর নাইন সম্পর্কে আমারা ইতিমধ্যেই সামান্য  তথ্য জেনেছি। এখন আমরা সেই তথ্যই বিশ্লেষণ করব। জিএসটি সাধারণত তিন ধরনের হয়।

১)এসজিএসটি-

এসজিএসটি কথাটির অর্থ হল স্টেট জিএসটি। তাই এই ধরনের জিএসটি আপনাকে বা আপনার ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে আপনার রাজ্যের সরকারকে প্রদান করতে হয়।

২)সিজিএসটি-

সিজিএসটি হল সেন্ট্রাল জিএসটি। তাই এই জিএসটি সংক্রান্ত সমস্ত হিসেবও সেন্ট্রাল গভারমেন্ট বা কেন্দ্রিয় সরকার করে থাকে। তাই এই ধরনের জিএসটিও প্রদান করতে হয় কেন্দ্রিয় সরকারকে

৩)আইজিএসটি-

আইজিএসটি বা ইন্টারনেসানাল জিএসটি কোন দেশের সীমানা মানে না। দেশ ও বিদেশের সকল ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলি নির্বিশেষে আন্তর্জাতিকভাবে এই ধরনের জিএসটি প্রদান করে থাকে।

আর এই তিন ধরনের জিএসটি প্রদান করার পর তার একটি হিসাব সরকারকে প্রদান করতে হয়। আর এই হিসেব প্রদান করার জন্য যে বিশেষ রিটার্ন ফাইল করা হয়ে থাকে তাকেই জিএসটিআর  নাইন বলা হয়ে থাকে।

জিএসটিআর নাইন কারা ফাইল করতে পারে? 

২০২০ সালের৩০সে জুন জিএসটি-এর উনচল্লিশ-তম কাউন্সিল মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। আর এই মিটিং-এর সিদ্ধান্তে এই বিশেষ রিটার্ন ফাইল করা সংক্রান্ত বিস্তারিত নিয়মাবলি ব্যাক্ত করা হয়েছে। এই নিয়মাবলি অনুযায়ী জিএসটি প্রদানকারি নাগরিকদের মধ্যে এই রিটার্ন ফাইল করা সকলের জন্য বাধ্যতা মুলক নয়। প্রাথমিক ভাবে যারা ব্যাবসা শুরু করেছে এবং তাদের দেওয়া বার্সিক জিএসটি-এর পরিমান ২ কোটি টাকার কম, তারা এই রিটার্ন না ফাইল করলেও কোন সমসসা হবে না। তবে সিজিএসটি, এসজিএসটি এবং আইজিএসটি মিলে পরিমান যদি ২ কোটি অতিক্রম করে যায় তবে এই রিতার্না ফাইল করা বাধয়তামুলক হয়ে পরে।

জিএসটিআর নাইন ফাইল করার এক একটি পদক্ষেপ

জিএসটিআর নাইন ফাইল করার জন্য আমাদের একটি একটি বিশেষ প্রক্রিয়া অনুসরন করতে হয়। এই প্রক্রিয়াটি জতিল একেবারেই নয়। তবে যেহেতু এই প্রক্রিয়ায় পদক্ষেপ রয়েছে অনেকগুলি, তাই এতি স্মরনে রাখা কিছু কিছু মানুশের কাছে একটু কঠিন ব্যাপার হয়ে পড়ে। তাই আপনি যদি এই বিশয়ে জানতে ইচ্ছুক হয়ে থাকেন, তবে মন দিয়ে এই পদক্ষেপগুলি সম্মন্ধে পরুন। তাহলে আপনার পদক্ষেপগুলি মনে রাখতে বেশ সুবিধা হবে।

১) জিএসটি পোর্টাল-এ লগ ইন করুন এবং রিটার্ন ড্যাশবোর্ডে অ্যানুয়াল রিটার্ন অন্সে যান-

আপনি যদি জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে চান, তবে আপনাকে আগে জিএসটি পোর্টালে নিজের একটি অ্যাকাউন্ট খুলে নিজেকে লগ ইন করে নিতে হবে। তারপর আপনাকে  রিটার্ন ড্যাশবোর্ডে গিয়ে খুজে নিতে হবে অ্যানুয়াল রিটার্ন অপশন। এই অংশে যাওয়ার পরই আপনি আপনার জিএসটি করতে পারবেন।


২)আপনি যদি আর্থিক বছরের জন্য শূন্য রিটার্ন ফাইল করতে চান তবে ‘হ্যাঁ’ ক্লিক করুন, অন্যথায় ‘না’-

বেশ কিছু কারনে আপনার বার্সিক জিএসটি রিটার্ন শুন্য হতে পারে। সেই ক্ষেত্রে আপনাকে এই অপশন বেছে নিতে হবে। তবে তার আগে আপনাকে জানতে হবে কেন আপনার জিএসটি রিতার্ন শুন্য আস্তে পারে। এর জন্য নিম্নলিখিত কারনগুলি দায়ি হতে পারে।
ক)কোন প্রকার বাহ্যিক সরবরাহ(বিক্রয়) না থাকলে
খ)পন্য বা পরিসেবাগুলি থেকে কোন মুল্য প্রাপ্তি না ঘটলে।
গ)রিপোর্ট করার মত অন্য কোন দায় না থাকলে
এ ছাড়াও আরও কিছু কারন আছে যেগুলির জন্য বার্সিক রিটার্ন সুন্য আস্তে পারে। আর টা হলে, আপনি খুব সহজেই এই পদ্ধতি অনুসরন করে আপনার শুন্য রিটার্ন ফাইল করতে পারবেন।

৩)আর্থিক বছরের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করুন-

 আপনার বার্সিক রিটার্ন যদি শুন্য হয় তবে আপনি যখন ফাইল করার জনইয় যখন না অপশন বেছে নেবেন, তখন আপনাকে বেশ কিছু তথ্য প্রদান করার নির্দেশ দিয়ে একটি বিশেষ অংশ খুলে যাবে। এই অংশে যা যা তথ্য ছাওয়া হয়েছে সেই সকল তথ্য দিয়ে দিলেই আপনি পরবর্তি পদক্ষেপে অগ্রসর হতে পারবেন।

৪)জিএসটিআর নাইনের এর পূর্বরূপ দেখুন-

আপনি যে রিটার্নটি ফাইল করতে চলেছেন, সেটি ফাইল করার আগে পিডিএফ আকারে আপনি আপনার জিএসটিআর নাইনের পূর্বরুপ দেখতে পেতে পারেন। এই অংশে আপনি এক ঝলকে দেখে নিতে পারেন যে আপনার প্রদান করা তথ্যে কোন ভুল আছে কিনা। ভুল থাকলে আপনি সেই ভুল সংসধন করে পুনরায় পিডিএফ ফাইল তৈরি করে তা মিলিয়ে নিতে পারেন।

৫)করের দায় এবং জরিমানার পরিমান গণনা করুন-

আপনি এতক্ষনে যে অংশে পউছেছেন, সেখানে আপনি একটি অপশন পাবেন যাতে লেখা থাকবে কম্পিউট লায়বিলিটিস। আপনি এই অপ্সনে ক্লিক করে খুব সহজেই দেখে নিতে পারেন যে আপনার কত কর বা ট্যাক্স বাকি আছে এবং সেই ত্যাক্সের জন্য আপনার জরিমানা কত বাকি।

৬)জিএসটিআর নাইন ফাইল করুন-

আপনার প্রস্ততিমুলক সমস্ত কাজ কর্ম ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গিয়েছে। তাই এরপর আপনি আপনার স্ক্রিনে কোথাও ফাইল জিএসটি বলে একটি অপশন দেখতে পাবেন। এরপর আপনার কাজ বলতে সুধুমাত্র অই অপ্সনে ক্লিক করা। তাহলেই আপনি আপনার জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে পারবেন।

এই পদ্ধতিটি একটু দীর্ঘ। তবে এই পদ্ধতিটি জটিল মতেই নয়। তাই আপনি যদি সবকটি পদক্ষেপ সঠিকভাবে মনে রাখতে পারেন তবে আপনি নিজেই খুবই সহজে নিজের জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে পারবেন।

এতক্ষন ধরে আপনারা জিএসটিআর নাইনসম্পর্কে বিস্তারিত বেশ কিছু তথ্য জানলেন। প্রথমে আমরা আপনাদেরকে জানিয়েছি যে জিএসটিআর নাইন কি। আমরা এই বিশয়ে কিছু অতিরিক্ত তথ্যও প্রদান করেছি জাতে আপনাদের বুঝতে সুবিধা হয়। এরপরে আমরা এই কথা বলেছি যে কারা জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে পারে। এই তথ্য জেনে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি জিএসটিআর নাইন ফাইল করার প্রয়োজনীয় শর্ত পুরন করেছেন কিনা। এর পর আমরা বিস্তারিতভাবে আপনাদেরকে বুঝিয়েছি যে কিকরে এক একটি পদক্ষেপ মেনে জিএসটিআর নাইন ফাইল করা যেতে পারে। এই পদক্ষেপগুলি এততাই সজা যে সুধুমাত্র এই প্রবন্ধে প্রদত্ত থ্যের উপর ভিত্তি করেই আপনি জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে পারেন। এই তথ্য গুলি জানার ফলে আপনার জিএসটি সংক্রান্ত অনেক ভুল ধারনা দূর হয়ে যাবে। এরপর আপনি এই তথ্যগুলি জেনে যা যা সিখেছেন তার ভিত্তিতে আপনার জিএসটি সংক্রান্ত পরিকল্পনা নিতে পারবেন। তাই আর সময় নস্ত করবেন না। এই প্রবন্ধ থেকে প্রাপ্ত তথ্যগুলি ভাল করে বিশ্লেষণ করুন আর আপনার জিএসটি সংক্রান্ত পরিকল্পনা সম্পূর্ণরুপে তৈরি করুন জাতে আপনি সঠিক সময়ে জিএসটিআর নাইন ফাইল করতে পারেন।

Related Posts

None

হোয়াটসঅ্যাপ বিপণন


None

জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর


None

হাসান নিচ্ সাধারণ দোকানে জন্য কোড


None

মুদি দোকান


None

কিরানার দোকান


None

ফল এবং সবজি দোকান


None

বেকারি ব্যবসা


None

হস্তশিল্প ব্যবসা


None

অটোমোবাইল আনুষাঙ্গিক