written by | October 11, 2021

কৃষি ব্যবসায়িক ধারণা

কৃষি ব্যবসায়িক ধারণার তালিকা

বর্তমান সময়ে কৃষি ব্যবসার ধারনাগুলো আধুনিকায়ন হওয়ার ফলে যে কোন পেশার মানুষ এই ব্যবসা করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করছে। তাই আপনার যদি এক টুকরো জমি থাকে তবে খুব সহজেই এই ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। বিশ্বের জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার জন্য কৃষি পণ্যের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে তাই এ ব্যবসা অনন্তকাল ধরে তিকে আছে এবং থাকবে এ কথা একেবারে নিশ্চিন্তভাবেই বলা যায়। আসুন দেখে নেই কিছু লাভজনক কৃষি ব্যবসার তালিকা। 

কৃষি খামার 

আপনার যদি আবাদযোগ্য জমি খালি পড়ে থাকে তবে আপনি এটিতে একটি কৃষি খামার শুরু করতে পারেন। আপনার অঞ্চলে উচ্চ চাহিদা রয়েছে এমন ফসল চাষ করে/ অথবা জমি ভাড়া দিয়ে চাষ করিয়ে তা থেকে আপনি উপার্জন করতে পারেন। এই খামার করাটা যেমন লাভদায়ক তেমনি খামারে উৎপাদিত পণ্যে ক্রেতার আস্থা সবসময় বেশী থাকে। 

গাছের খামার 

উদ্ভিদের ব্যবসা অর্থাৎ আপনি বৃক্ষরোপণ করে তা বড় হওয়ার পর বিক্রি করে লাভ অর্জন করতে পারেন। এই ব্যবসায়, উদ্ভিদ বৃদ্ধিতে দীর্ঘ সময় লাগে কিন্তু উদ্ভিদের দাম অনেক। সুতরাং দীর্ঘ সময় লাগলেও এটি একটি ভাল কৃষি বাণিজ্য বিভাগের অন্তর্ভুক্ত। এছাড়াও ফল, ফুলের বা অন্যন্য গাছের কলম কেটে চারা বানিয়েও সারা বছর চারা বিক্রি করে ভালো লাভ করতে পারবন। 

জৈব সার উত্পাদন 

বর্তমানে  ভার্মিকম্পোস্ট এবং জৈব সার চাষের একটি ঘরোয়া ব্যবসায় হয়ে উঠছে। এই ব্যবসা স্বল্প মূলধন বিনিয়োগে করা যেতে পারে, কেবল তার উত্পাদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে সচেতন হওয়া উচিত। এই জৈবসারের ব্যবসাও খুব লাভবান। 

সার বিতরণ ব্যবসা  

এই ব্যবসা ছোট শহর বা গ্রামাঞ্চলে বসবাসকারী লোকেরা সহজেই করতে পারেন। এই ব্যবসায়, আপনাকে বড় শহরগুলি থেকে সার কিনে গ্রামীণ অঞ্চলে বিক্রি করার পরিকল্পনা করতে হবে। মানে আপনাকে কৃষকের কাছে সার পৌঁছাতে মধ্যস্ততা করতে হবে। এটিও একটই দারুন লাভজনক ব্যবসা। 

মাছের চাষ

আজকাল মাছের চাষ ব্যবসাটি দারুন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তাই আপনি চাইলে নিজ পুকুরে বা পুকুর ভাড়া করে এই ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। তাছাড়া, চিংড়ি মাছ চাষ ও রপ্তানি করে ভালো আয় করা যায়। 

ধান বিজের ব্যবসা

আজকাল সব এলাকাতেই ধান বিজ দরকার হয় তাই মৌসুমি ব্যবসা হিসেবে এই বিজের ব্যবসা করে আপনি খুব সহজেই সফল ব্যবসায়ী বনে যেতে পারেন। 

আম চাষ

এক টুকরো জমিতে আম গাছ লাগিয়ে আপনি সারা জীবন মৌসুমি আমের চালান বিক্রি করে ভালো আয় করতে পারবেন। এছাড়াও এখন সারা বছর গাছে ধরে এমন আমের গাছ পাওয়া যাচ্ছে। তাই আম চাষের ব্যবসা অন্যতম লাভজনক ব্যবসা হতে পারে।  

শুকনো ফুলের ব্যবসা  

বিগত কয়েক বছরে, শুকনো ফুলের বাণিজ্য ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। যদি আপনার যদি খালি জমি থাকে তবে আপনি এটিতে ফুলের চাষ করতে পারেন এবং সেগুলি শুষ্ক করে ক্রাফ্ট স্টোরগুলিতে বিক্রি করতে পারেন।

মাশরুম চাষ  

মাশরুমের ব্যবসা এমন একটি ব্যবসা যা আপনাকে কম সময়ে আরও বেশি লাভ দিতে পারে। এটি কম ব্যয় এবং স্বল্প জায়গাতেই করা যেতে পারে। আজকাল হোটেল, রেস্তোঁরাগুলির পাশাপাশি সাধারণ বাজারেও মাশরুমের চাহিদা বেড়েছে।

পোল্ট্রি 

হাঁস-মুরগির খামার গত কয়েক বছরে খুব দ্রুত বর্ধনশীল একটি ব্যবসায় পরিণত হয়েছে। এটি কৃষি শিল্প ধারণার অন্তর্ভুক্ত একটি দুর্দান্ত ক্ষেত্র।

হাইড্রোপনিক খুচরা দোকান  

হাইড্রোপোনিক্স প্রযুক্তির ব্যবহার আজকাল খুব দ্রুত বাড়ছে। এতে মাটি ছাড়াই চাষ করা হয়। এই ব্যবসায়, আপনি এক জায়গায় হাইড্রোপনিক চাষের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম বিক্রয় করতে পারেন।

জৈব গ্রীণহাউস 

জৈব গ্রীণহাউস ব্যবসায়ের বৃদ্ধিও যথেষ্ট ভাল। কারণ জৈব পদ্ধতি দ্বারা উৎপাদিত পণ্যগুলির চাহিদা এখন উত্তরোত্তর বাড়ছে। আগে এই ব্যবসায় ছোট পরিবার পরিচালিত খামারগুলিতে করা হত।  তবে ক্রমবর্ধমান চাহিদা নিয়ে লোকেরা এখন জৈব গ্রীণহাউসগুলি তৈরির জন্য জমি কিনছে।

মৌমাছি পালন  

মধুর উপকারিতা সম্পর্কে সকলেই অবগত। আর এখনকার দিনে খাঁটি মধুর চাহিদা ও দাম দুইই প্রচুর। বাইরের বাজারেও এর চাহিদা বাড়ছে, তাই মৌমাছি পালনও একটি লাভজনক ব্যবসা। এই ব্যবসায়ের জন্য অনেক জায়গায় প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়।

শামুক চাষ 

কৃষি ব্যবসায় শামুক চাষ একটি ভাল ব্যবসা। শামুকের খোলস থেকে তৈরী হয় চুন, যা মাছ চাষে ব্যবহৃত হয়। এছাড়াও শামুক জলজ পালনে এবং অন্যান্য ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হয়। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বল্প সময়ে এর থেকে ভাল লাভ করা যায়।

ফলমূল ও শাকসবজি রফতানি 

এটি এক ধরণের রফতানি ব্যবসা যেখানে আপনাকে স্থানীয় খামারগুলি থেকে ফল এবং সবজি কিনতে হবে এবং বাইরে সরবরাহ করতে হবে।

ফলের রস উত্পাদন

ফলের রস উত্পাদন প্রক্রিয়াটি বেশ সহজ এবং খুব অল্প মূলধন বিনিয়োগের মাধ্যমেই শুরু করা যেতে পারে। এই ব্যবসাটির বাজারে উচ্চ চাহিদা রয়েছে। এই ব্যবসাটি শুরু করার জন্য, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর রাখা বাধ্যতামূলক।

ছাগল পালন 

মাংসের চাহিদা বেশি হওয়ায় ছাগল পালন ব্যবসা বিশ্বজুড়ে খুব জনপ্রিয় এবং লাভজনক। সুবিধাজনক দিকটি হল, ছাগল পালন কম মূলধন বিনিয়োগে শুরু করা যায় এবং বিক্রির সময়ে এর ভালো মূল্য পাওয়া যায়।

বেবীকর্ণ চাষ 

বেবীকর্ণ সর্বাধিক বহুমুখী ফসল হিসাবে আবির্ভূত। এই উদ্ভিদ থেকে বছরে তিন-চারবার ফসল পাওয়া যায়। দিন দিন এর চাহিদা বাড়ছে। ভাল মানের বীজ নির্বাচন করে এর বাম্পার ফলন পাওয়া সম্ভব এবং তা ভালো দামে বাজারে বিক্রি করে আপনি লাভবান হতে পারবেন।

পট্যাটো পাউডার ব্যবসা 

খাদ্য শিল্পে ব্যাপকভাবে পট্যাটো পাউডার ব্যবহার করা হয়। এটি এখন সব ধরণের খাদ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে। খাবারে গ্রেভি এবং স্যুপ তৈরিতেও এটি ব্যবহৃত হয়। সুতরাং এই ব্যবসা এখন যথেষ্ট জনপ্রিয় এবং লাভজনক।

মশলা প্রক্রিয়াকরণ  

জৈব মশলার চাহিদা দেশ-বিদেশে সর্বত্র। এটির প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং প্যাকেজিং প্রক্রিয়া খুবই সহজ এবং কম মূলধন বিনিয়োগের মাধ্যমে শুরু করা যেতে পারে।

সয়াবিন চাষ  

সয়াবিন থেকে অনেক ধরণের খাবার আইটেম যেমন সয়া মিল্ক, সয়া আটা, সয়া সস, সয়াবিন তেল ইত্যাদি তৈরি করা হয়। আপনার যদি কৃষিক্ষেত্রের খালি জমি থাকে তবে আপনি এটি চাষ করে লাভ অর্জন করতে পারেন।

সার্টিফাইড সীড সেলার 

বর্তমান যুগে সার্টিফাইড সীড সেলিং (প্রত্যয়িত বীজ বিক্রয়) একটি প্রচলিত ব্যবসা। এটি শুরু করার জন্য খুব বেশি মূলধন বিনিয়োগের দরকার নেই। এই ব্যবসা করেও আপনি ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

দুগ্ধ ব্যবসা 

দুগ্ধের পাশাপাশি দুগ্ধজাত পণ্যের চাহিদা সর্বদা বেশি। তাই নিশ্চিতভাবে বলা যায় যে, ডেইরি ব্যবসা ভারতে সবচেয়ে লাভজনক কৃষি ব্যবসা। দুগ্ধ ব্যবসা শুরু করার জন্য সরকার থেকে মুদ্রা লোণ প্রকল্পে লোণও পাওয়া যায়। সুতরাং, এই ব্যবসা করে আপনি সহজেই লাভবান হতে পারবেন।

Related Posts

None

হোয়াটসঅ্যাপ বিপণন


None

জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর


None

হাসান নিচ্ সাধারণ দোকানে জন্য কোড


None

মুদি দোকান


None

কিরানার দোকান


None

ফল এবং সবজি দোকান


None

বেকারি ব্যবসা


None

হস্তশিল্প ব্যবসা


None

অটোমোবাইল আনুষাঙ্গিক