written by | October 11, 2021

আগরবাট্টির ব্যবসা

কিভাবে ধুপের ব্যাবসা শুরু করা যায়

ধুপ বা আগরবাতি ভারতে বহুল প্রচলিত একটি পন্য। যে সকল মানুষ তাদের বাড়িতেই কোনরকম পুজোর ব্যাবস্থা রাখেন এবং ভগবানকে শ্রদ্ধা জানাতে ইচ্ছুক হয়ে থাকেন, তারা এই ধুপ বা আগরবাতি জ্বেলেই এক সুগন্ধি মনরম পরিবেশ সৃষ্টি করেন তাদের ঘরে। এ ছাড়াও বিভিন্ন মন্দিরে আমরা ধুপের ব্যাবহার দেখতে পেয়ে থাকি। আর এই সমস্ত কারনে ধুপের ব্যাবসা বর্তমানের ছোট উদ্যোগগুলির মধ্যে অন্যতম একটি হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই আপনি যদি ইচ্ছে করেন তবে আপনিও খুব সহজেই এই ব্যাবসা শুরু করতে পারবেন।

তবে এই ব্যাবসা শুরু করতে গেলে আপনাকে নির্দিস্ট বেশ কিছ পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হয়। এই পদক্ষেপগুলি কঠিন একেবারেই নয়। তবে এই পদক্ষেপগুলি সঠিক ভাবে অনুসরণ করতে আপনি যদি অক্ষম হন, তবে আপনার উৎপাদিত ধুপকাঠি বিক্রয়ের অনুপযুক্ত হয়ে উঠতে পারে। তাই আপনি যদি এই ব্যাবসা শুরু করতে ইচ্ছুক হয়ে থাকেন, তবে আপনাকে আগে এই পদক্ষেপ গুলি সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। তাই আসুন আমরা জেনে নিই এই পদক্ষেপগুলি কি কি।

বাজার সমীক্ষা এবং ব্যাবসা পরিকল্পনা

যেকোনো ব্যাবসা শুরু করার আগেই এই প্রক্রিয়া আপনাকে অনুসরণ করতে হয়। তার কারন কোন ব্যাবসা শুরু করতে গেলে আমাদের আগে জানতে হয় যে বাজারে সেই ব্যাবসার চাহিদা কতটা। আর সেই কাজের সবচেয়ে বেশি কার্জকারি উপায় হল বাজার সমীক্ষা। কারন সরাসরি ভাবে বাজারে নেমে বাজারের লোকজনের মতামত গ্রহন করলে তবেই জানা যায় যে তাদের চাহিদা কিরকম। এরপর আপনি যে তথ্য সংগ্রহ করলেন, সেই তথ্যের ভিত্তিতেই আপনি জানতে পারবেন যে কোন কোন উপায়ে ব্যাবসা শুরু করলে সাফল্যের সম্ভাবনা আছে। এবং তারপর সেই উপায়গুলির মধ্যে কোন একটিকে বেছে নিয়ে আপনি আপনার ব্যাবসা শুরু করতে পারেন।

অর্থের যোগান

অর্থ যেকোনো ব্যাবসার জন্যেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ উপকরণগুলির মধ্যে একটি। কারন অর্থ না থাকলে আমরা ব্যাবসার অন্য কোনরকম সামগ্রীই কিনতে পারব না বা অন্যান কোন ক্ষেত্রে খরচ করার দরকার হলে তাও পারব না। তাই ব্যাবসা শুরু করার আগে আমাদের দেখে নিতে হবে যে আমরা অর্থের যোগান কোথা থেকে করব। সেই ব্যাবস্থা আমরা করতে পারলে তবেই এই ব্যাবসায় আমরা অগ্রসর হতে পারব এবং অন্যান পদক্ষেপগুলি নিতে পারবো।

রেজিস্ট্রেসন ও লাইসেন্সের ব্যাবস্থা

আপনার ব্যাবসা যদি আগে থেকে প্রতিষ্ঠিত কোন পারিবারিক ব্যাবসা না হয়ে ঠাকে, তবে আপনাকে ব্যাবসা শুরু করার আগে আপনার ব্যাবসাকে রেজিস্টার করাতে হবে। তার জন্য আপনাকে আগে আপনার এলাকার স্থানীয় আইন সম্পর্কে জানতে হবে। এছাড়া জানতে হবে ব্যাবসা শুরু করলে আপনাকে কিরূপ ট্যাক্স দায় বহন করতে হবে। তারপরেই আপনি আপনার ব্যাবসাকে আরওসি তে নথিভুক্ত বা রেজিস্টার করতে পারবেন। আর এই কাজ সম্পন্ন হলেই আপনি আপনার ব্যাবসার লাইসেন্সের জন্য আপিল করতে পারবেন। 

নির্দিস্ট যন্ত্রপাতি ক্রয়

ধুপের উৎপাদনের জন্য এক বিশেষ ধরনের যন্ত্রের প্রয়োজন। এই যন্ত্রের মধ্যেই ধুপ প্রস্তুতকরনের উপকরণ প্রদান করে তার থেকে মূল পণ্যটি উৎপাদন করা হয়। তাই অর্থসংস্থান ও লাইসেন্সের ব্যাবস্থা হয়ে গেলেই আমাদের চেষ্টা করতে হবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই জন্ত্রতি ক্রয় করে নেওয়া। তাহলে খুব সহজেই আমরা ধুপের উৎপাদন শুরু করতে পারব এবং তার থেকে মুনাফাও অর্জন করতে পারব।

কারখানার প্রস্তুতকরন

যেকোনো উতপাদন্মূলক ব্যাবসায় কারখানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর ধুপ উৎপাদনের ব্যাবসাও ের ব্যাতিক্রম নয়। আপনি ধুপের প্রস্তুত করনের যন্ত্র ক্রয় করার পর যখন উৎপাদন করতে যাবেন, তখন আপনাকে আগে সেই যন্ত্র স্থাপন করে কারখানা প্রস্তুত করতে হবে। এই কারখানার আকার, ও ভিতরে অবস্থান যন্ত্রের সংখ্যা নির্ভর করবে আপনি কতটা উৎপাদন করতে চান তার উপর। তবে প্রাথমিক ভাবে ব্যাবসা শুরু করার সময়ে আপনার খুব বেশি উৎপাদনের প্রয়োজন হবে না। তাই এই ব্যাবসার প্রাথমিক স্তরের প্রতিষ্ঠার জন্য ১০০০ বর্গফুটের জায়গাই যথেষ্ট। তাই এইতুকু জায়গা যদি আপনি ব্যাবস্থা করতে পারেন, তবে আপনি খুবই সহজে এই ব্যাবসা শুরু করার পরবর্তী পদক্ষেপে যেতে পারবেন।

দক্ষ শ্রমিক

ধুপ উৎপাদন করার জন্য নির্দিস্ট পরিমানের বিভিন্ন উপকরণকে সঠিক প্রক্রিয়ায় মেশাতে হয়। এই কাজ খুব কঠিন  নয়। তবে এই কাজ সম্পর্কে একদম কোন ধারনা নেই, এমন ব্যাক্তি যদি এই কাজ করে, তবে আপনার উৎপাদিত ধুপ গুনগত মানের দিক থেকে অনেক নিছে নেমে যাবে। যেহেতু আপনার এই উৎপাদনের ব্যাবসার অধিকাংশ কাজ আপনার কর্মচারি ও শ্রমিকরা করবে তাই এই ব্যাবসা শুরু করার আগে আপনাকে দক্ষ শ্রমিক খুজে নিতে হবে যারা খুব সহজেই এই কাজ সম্পন্ন করতে পারবে। তাহলে সেই স্রমিকদের সহায়তায় আপনি খব কম সময়ে অনেক বেশি পরিমানে ধুপ উৎপাদন করতে পারবেন। 

কাঁচামালের বাজার ও পন্যের বাজার

যেকোনো ব্যাবসা শুরু করার জন্য বাজারের সাথে যোগাযোগ রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তার কারন প্রথমে আমাদের কাঁচামাল ক্রয়ের জন্য একবার বাজারের সাথে যোগাযোগ করতে হয়। আর আপনি এই কাজ করার সময়ে সঠিক বিক্রেতার সাথে যদি যোগাযোগ না করেন, তবে আপনাকে পন্য ক্রয় করার জন্য অনেক বেশি অর্থ প্রদান করতে হতে পারে। এরপর আপনার ধুপ উৎপাদনের কাজ সম্পন্ন হলে, তাকে বিক্রয় করার যখন সময় আসবে, তখন আপনাকে দেখেতে হবে যে আপনি বাজারে যে ব্যাক্তির সাথে বিক্রয়ের চুক্তি করছেন সে আপনাকে উপযুক্ত মুল্য প্রদান করতে সক্ষম হবে কিনা। কারন আপনি যদি আপনার ব্যাবসার উৎপাদিত পন্য সঠিক দামে বিক্রয় করতে না পারেন, তবে আপনার কর্মচারিদের পারিস্রমিক দিতে বেশ কঠিন সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। তাই ব্যাবসার সুচনার আগেই আপনার উচিত বাজারের এই দুই পক্ষের সাথে যোগাযোগ করে রাখা।

পরিক্ষামুলক পন্য উৎপাদন এবং দাম নির্ধারন

আপনার পন্য উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত প্রস্তুতি শেষ। এরপরেই আপনি মুল উৎপাদন শুরু করতে পারেন। তবে তা করার আগে এই অতিরিক্ত পদক্ষেপটি গ্রহন করলে আপনারই ব্যাবসায়িক কাজকর্মে সুবিধা হবে। আর এই পদক্ষেপটি হল পরিক্ষামুলকভাবে কিছু পন্য তৈরি করা। কারন সেই পন্য তৈরি আন্দাজ করতে পারবেন আপনার এই পন্য উৎপাদনে কতটা কাঁচামালের প্রয়োজন এবং আপনি তার ভিত্তিতে আপনার পন্যের দাম নির্ধারন করতে পারবেন।

উৎপাদন ও বিক্রয়

এতক্ষন ধরে আপনারা যে সমস্ত পদক্ষেপগুলির কথা জানলেন তার সবকটিই প্রস্তুতি পর্বের কাজ। তবে এই সবকটি কাজ আপনার সমাপ্ত হলে আপনি মূল পর্ব অর্থাৎ ব্যাবসায়িক কর্মকান্ডের দিকে অগ্রসর হতে পারেন। এই ব্যাবসার ক্ষেত্রে সেই কাজ করার জন্য আপনাকে ধুপের উৎপাদন ও বিক্রয় শুরু করতে হবে। আপনি যত তাড়াতাড়ি এই কাজ করতে পারবেন, তত তাড়াতাড়ি আপনি মুনাফা মারফৎ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

এতক্ষন ধরে আমরা ধুপ উৎপাদন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠার জন্য যে সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহন করা প্রয়োজন তা সম্পর্কে আলোচনা করলাম। আমরা আপনাকে যে পদ্ধতির কথা বলেছি, তা একমাত্র পদ্ধতি নয়। তবে এই পদ্ধতি সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিগুলির মধ্যে একটি। তাই প্রাথমিক স্তরে ব্যাবসা শুরু করার কথা আপনি চিন্তা করে থাকলে আপনার জন্য এই পদ্ধতিটি খুবই সহজ হবে। তা ছাড়াও আমারা এই প্রবন্ধে আপনাকে বেশ কিছু তথ্য দিয়েছি যা আপনাকে ব্যাবসায় উন্নতি করতেও সাহায্য করবে। তাই এই ব্যাবসা শুরু করার চিন্তা আপনি করে থাকলে এই প্রক্রিয়াটি এবং প্রুদত্ত তথ্যগুলিকে ভালভাবে পর্জবেক্ষন করুন। তারপর আপনি সেই তথ্যগুলি বিশ্লেসনের মাধ্যমে দেখুন যে তার মধ্যে কতটা আপনি আপনার স্থানীয় অঞ্চলে কার্জকরি করতে পারবেন। তারপর সেই অনুযায়ী আপনার ব্যাবসার পরিকল্পনা তৈরি করুন জার ভিত্তিতে আপনি এই ব্যাবসায় সাফল্য লাভ করতে পারবেন।

Related Posts

None

হোয়াটসঅ্যাপ বিপণন


None

জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর


None

হাসান নিচ্ সাধারণ দোকানে জন্য কোড


None

মুদি দোকান


None

কিরানার দোকান


None

ফল এবং সবজি দোকান


None

বেকারি ব্যবসা


None

হস্তশিল্প ব্যবসা


None

অটোমোবাইল আনুষাঙ্গিক